বুধবার থেকে ট্রেনের ২৫ শতাংশ কাউন্টারে ও ২৫ শতাংশ টিকিট অনলাইনে

বুধবার (১২ জানুয়ারি) থেকে নতুন নিয়মে ট্রেনের টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। নতুন নিয়ম অনুযায়ী, ২৫ শতাংশ টিকিট অনলাইনে এবং ২৫ শতাংশ কাউন্টারে বিক্রি করা হবে। ১৫ জানুয়ারি থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন মোকাবিলায় আসনের অর্ধেক যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন চলাচলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ১৩ জানুয়ারি থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। সেক্ষেত্রে আসন সংখ্যার অর্ধেক (৫০ শতাংশ) যাত্রী নিয়ে চলবে ট্রেন।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) বাংলাদেশ রেলওয়ের উপপরিচালক (টিসি) মাে. নাহিদ হাসান খান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) সরদার সাহাদাত আলী।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করােনা ভাইরাসজনিত রােগের (কোভিড-১৯) বিস্তাররােধে সার্বিক কার্যাবলি/চলাচলে বিধিনিষেধ আরােপ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সরকার। প্রজ্ঞাপনে ট্রেন, বাস ও লঞ্চে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচলের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এমতাবস্থায় যাত্রীবাহী ট্রেন পরিচালনার ক্ষেত্রে রেলওয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও যাত্রীদের স্বাস্থ্যগত নিরাপত্তার স্বার্থে শারীরিক দূরত্ব ও মাস্ক পরিধান নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট বিক্রিতে নিম্নবর্ণিত সংশােধনী আনা হয়েছে।

ক. যাত্রীদের সামাজিক ও শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে আন্তঃনগর ট্রেনে বিদ্যমান আসনসংখ্যার অর্ধেক টিকিট বিক্রি;
খ. আসনসংখ্যার অর্ধেক (অর্থাৎ মােট আসনসংখ্যার ২৫ শতাংশ) টিকিট কাউন্টারের মাধ্যমে এবং বাকি অর্ধেক আসনের (অর্থাৎ মােট আসনসংখ্যার ২৫ শতাংশ) টিকিট মােবাইল অ্যাপ/অনলাইনের মাধ্যমে বিক্রি করা হবে;
গ. আন্তঃনগর ট্রেনের স্ট্যান্ডিং টিকিট ও স্টেশনের প্ল্যাটফর্ম টিকিট ইস্যু সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে;
ঘ. এর আগে রেল মন্ত্রণালয়ের অনুমােদিত ইমার্জেন্সি কোটা ও আন্তঃনগর ট্রেন ম্যানুয়াল অনুযায়ী পাস কোটা ছাড়া আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট বিক্রিতে বিদ্যমান সব প্রকার কোটা বাতিল করা হয়েছে;
ঙ. কাউন্টারে টিকিট ও ট্রেনে ভ্রমণের ক্ষেত্রে যাত্রীর মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে হবে;
চ. প্রচলিত নিয়মানুযায়ী ও স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে প্রতিপালনপূর্বক আন্তঃনগর ট্রেনে ক্যাটারিংসেবা প্রদান ও ট্রেনে রাত্রিকালীন বেডিং সরবরাহ করতে হবে;

এসব সংশােধনী আগামী ১৫ জানুয়ারি (যাত্রার তারিখ বিবেচনায়) থেকে কার্যকর হবে। এক্ষেত্রে সময়ে সময়ে জারিকৃত টিকিট ইস্যু এবং স্বাস্থ্যবিধি পরিপালনে নিয়মাবলি অপরিবর্তিত থাকবে।

Facebook Comments