ভোটার দিবসে তাৎক্ষণিক ভোটার হওয়ার সুযোগ

আগামী ২ মার্চ জাতীয় ভোটার দিবস পালন করা হবে। সেদিন তাৎক্ষণিকভাবে ভোটার হওয়া যাবে। এবছর জাতীয় ভোটার দিবসে এ সুযোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ওই দিন নির্বাচন কমিশনের উপজেলা, আঞ্চলিক, জেলা ও বিভাগীয় কার্যালয়ে তথ্য প্রমাণ নিয়ে গেলেই ভোটার হওয়া যাবে। তবে করোনা পরিস্থিতিতে দিবসটি স্বল্প পরিসরে পালিত হবে। নির্বাচন কমিশনের যুগ্ম সচিব আসদুজ্জামান সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

করোনার কারণে এবার বড় কোনও সমাবেশ থাকছে না। তবে ভোটারদের সচেতন করতে বাংলাদেশে টেলিভিশনসহ বেসরকারি টেলিভিশনে বিভিন্ন অনুষ্ঠান হবে। জাতীয় পত্রিকায় বের হবে ক্রোড়পত্র। আলোকসজ্জ্বিত করা হবে রাজধানীর নির্বাচন ভবন। আর ওই ভবনের আশপাশ সড়কগুলোতে ব্যানার-ফেস্টুন টানানো হবে। আর ইসির কর্মকর্তাদের নিয়েই আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন নির্বাচন অফিসে ভোটার করাসহ স্বল্প পরিসরে দিবসটি পালিত হবে।

এ বিষয়ে আসাদুজ্জামান বলেন, ভোটার হওয়া একটি চলমান প্রক্রিয়া। তবে ভোটার দিবসে কেউ ইসির অফিসে গিয়ে তখনই ভোটার নিবন্ধন করতে পারবেন। নতুন ভোটারদের নাম, ঠিকানা ও সংশ্লিষ্ট তথ্য সংগ্রহ করে যাচাই করা হবে। এরপরই তাদের ভোটার করা হবে। এজন্য কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জানা যায়, দেশে এটি তৃতীয় বারের মত পালন করা হচ্ছে। আইন অনুযায়ী এর আগে ২ জানুয়ারি থেকে ১ মার্চ পর্যন্ত কম্পিউটার ডাটাবেইসে থাকা বিদ্যমান সব ভোটার তালিকা হালনাগাদ করা হবে। জাতীয় ভোটার দিবস ‘খ’ শ্রেণিভুক্ত একটি দিবস। প্রমোশন ক্যাম্পেইন সংক্রান্ত দিবসগুলো ‘খ’ শ্রেণিতে থাকে। এজন্য ভোটারদের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে এসব কর্মসূচি হাতে নিয়েছে ইসি।

Facebook Comments