আওয়ামী লীগে রাজনৈতিক পরিচয়ে অপরাধ করার সুযোগ নেই: সেতুমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আওয়ামী লীগে অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র চর্চার পাশাপাশি দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দুষ্টের দমন ও শিষ্টের লালন নীতি অনুসরণ করা হয়।

তিনি বলেন, রাজনৈতিক পরিচয়ে অপরাধ করার কোনও সুযোগ আওয়ামী লীগে নেই। বৃহস্পতিবার সকালে এক ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন তিনি।

আওয়ামী লীগ একটি সুশৃঙ্খল রাজনৈতিক দল উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, সাংগঠনিকভাবে কোনও অনিয়ম, দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেয়া হয় না। যেকোনো অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া মাত্রই নেয়া হচ্ছে সাংগঠনিক ব্যবস্থা।

তিনি বলেন, অনিয়ম-দুর্নীতির বিরুদ্ধে শেখ হাসিনা স্বপ্রণোদিত হয়ে যে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছিলেন, তা এখনও চলমান আছে। ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে। সেতুমন্ত্রী বলেন, দল কখনও কোনও অপরাধীকে রক্ষা করার ঢাল হবে না। শেখ হাসিনার কাছে অপরাধীর পরিচয় অপরাধীই।

গুটিকয়েক মানুষের অপরাধের জন্য সরকারের অনন্য অর্জনগুলো ম্লান হতে দেয়া যায় না বলেও মন্তব্য করেছেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, অপরাধের দায় ব্যক্তির, দলের নয়। সেতুমন্ত্রী বলেন, মজবুত ও গণমুখী সংগঠন আওয়ামী লীগের প্রধান লক্ষ্য। বিভিন্ন ইউনিটে পারস্পরিক সমঝোতা, সমন্বয় এবং সম্প্রীতির অভাব দেখা দিলে সংগঠনের অচলাবস্থা তৈরি হয়।

এদিকে সম্প্রতি দুটি জেলার আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে অব্যাহতি দেয়া প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, এটি কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের জন্য দলীয় প্রধানের একটি বার্তা। দলের অভ্যন্তরীণ শৃঙ্খলাকে এখন গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

Facebook Comments